Main Menu

আগামী দিনে সাংবাদিকতায় নেতৃত্ব দেবে অনলাইন গণমাধ্যম: প্রধান তথ্য কর্মকর্তা

আগামী-দিনে

নিউজ ডেস্ক:

বাংলাদেশের প্রধান তথ্য অফিসার মো. শাহেনুর মিয়া বলেছেন,পৃথিবীতে এখন চতুর্থ বিপ্লবের যুগ চলছে।আইটি সেক্টরের প্রভূত উন্নতি সাধিত হয়েছে।চতুর্থ শিল্প বিপ্লব,ফাইভ জি,অনলাইন ও সোস্যাল মিডিয়া সাংবাদিকতার ধ্যান-ধারণা,সংজ্ঞা ও প্রকৃতি অনেকটাই বদলে দিয়েছে।সিটিজেন জার্নালিজম,মোবাইল জার্নালিজম,আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্সের এই সময়ে সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম নানাভাবে বিকশিত হচ্ছে।নানা রুপ ধারণ করছে।অবাধ তথ্য প্রবাহের কারণে সংবাদ কে আর কোনভাবেই সীমাবদ্ধ করে রাখা যাবে না।তিনি বলেন,উন্নত বিশ্বে প্রিন্ট পত্রিকা নেই বললেই চলে।আমাদের দেশেও প্রিন্ট পত্রিকা ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াগুলোও ইতোমধ্যে তাদের অনলাইন ভার্সন চালু করেছে। বাংলাদেশ ২০১৬ সাল থেকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে প্রবেশ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন,আগামী দিনে অনলাইন মিডিয়া,আইপি টিভি ও সোস্যাল মিডিয়া আরো ডমিনেন্ট হবে।সাংবাদিকতায় লীড দেবে অনলাইন মিডিয়া।প্রিন্ট পত্রিকা শুধু আমরা পড়বো।সিলেটে অনলাইন মিডিয়ার বিপ্লব ঘটে গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন,প্রযুক্তির উন্নয়নে সাংবাদিকতায় নতুন নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে।

শাহেনুর মিয়া বলেন,একসময় পত্রিকা অফিসে লেটার প্রেস দিয়ে কাজ করা হত।কম্পিউটার আসার পরে লেটার প্রেস কর্মীরা প্রবলভাবে বাঁধা দিয়েছিল।কিন্তু কম্পিটার যে একটি শক্তি,তাই সে তার জায়গা করে নিয়েছে।অনলাইন হচ্ছে নিউ মিডিয়া।এটা এখন বাস্তবতা।তাই বিভাজন,বিভক্তি,বিতর্ক এগুলো না করে সাংবাদিকতার বহুমুখী বিকাশে ঐক্যবদ্ধভাবে সকলকে কাজ করতে হবে।তিনি প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশনায় পিআইডি সারাদেশের সাংবাদিকদের ডাটাবেস তৈরীর কাজ করছে উল্লেখ করে বলেন,এটি চলমান প্রক্রিয়া।সব সময় সাংবাদিকরা এতে যুক্ত হতে পারবেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহিনুর মিয়া আরো বলেন,তথ্য অধিদপ্তর (পি আই ডি) হলো সরকারের মুখপাত্র।রাষ্ট্রের প্রচার বিভাগ।তিনি সরকারের জেলায় জেলায় তথ্য কমপ্লেক্স নির্মাণের পরিকল্পনা তুলে ধরে সাংবাদিকদের বলেন,এটির মূল উপজীব্য হলেন আপনারা।তিনি বলেন,দেশের সব জায়গায় শিল্প,সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকাশে স‌রকার এ উদ্যোগ নিচ্ছে।তিনি বলেন,আমাদের চলচ্চিত্র হারিয়ে যাচ্ছে।এগুলো ধরে রাখতে হবে।কারণ, শিল্প সংস্কৃতি বিনষ্ট হয়ে গলে জাতি হিসেবে কেউ ঠিকে থাকতে পারে না।প্রধান অতিথি তথ্য কমপ্লেক্স নির্মিত হলে সেখানে সাংবাদিকদের বিশাল স্পেস থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

তথ্য অধিদপ্তরের প্রধান তথ্য অফিসার শাহেনুর মিয়া আজ শুক্রবার সকালে সিলেটে কর্মরত প্রিন্ট,ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন।

পিআইডি’র সিলেট আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উদ্যোগে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন,জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার আহসানুল আলম।

পিআইডি সিলেট আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপ-প্রধান তথ্য অফিসার এ এইচ এম মাসুম বিল্লাহর সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন,সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাব সভাপতি মুহিত চৌধুরী,সাধারণ সম্পাদক ও বাসস’র সিলেট ব্যূরো প্রধান মকসুদ আহমদ মকসুদ,সহ-সভাপতি ও দৈনিক আলোকিত সিলেটের নির্বাহী সম্পাদক গোলজার আহমদ হেলাল,সিলেট জেলা প্রেসক্লাব সভাপতি আল আজাদ,সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদ,সহ-সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রাসেল,কোষাধ্যক্ষ মিসবাহ উদ্দিন,সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী,ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন( ইমজা) সভাপতি মঈন উদ্দিন মনজু,ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় সভাপতি শেখ আশরাফুল ইসলাম নাসির,এম সাইফুর তালুকদার,সিলেট প্রেসক্লাব সদস্য শাকিলা ববি,সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাব সদস্য ফাইজা রাফা প্রমুখ।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.