Main Menu

প্রযুক্তিগত বিভ্রাটের আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রগামী বহু ফ্লাইট বাতিল

নিউজ ডেস্ক:
যুক্তরাষ্ট্রগামী ফ্লাইট বাতিল করেছে বেশকিছু আন্তর্জাতিক এয়ারলাইনস। নতুন ফাইভজিসম্পন্ন ফোন ও উড়োজাহাজের মধ্যকার প্রযুক্তিগত জটিলতার আশঙ্কায় এমিরেটস, এয়ার ইন্ডিয়া, অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ (এএনএ) ও জাপান এয়ারলাইনস যুক্তরাষ্ট্রগামী ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করে। খবর সিএনবিসি।

এ বিষয়ে এমিরেটস জানায়, মোট নয়টি যুক্তরাষ্ট্র বন্দরগামী ফ্লাইট স্থগিত করা হয়েছে। এগুলো হলো বোস্টন, শিকাগো ও’হেয়ার, ডালাস ফোর্ট ওয়োর্থ, জর্জ বুশ ইন্টারন্যাশনাল, মিয়ামি, নেয়ার্ক, অরল্যান্ডো, সানফ্রান্সিসকো ও সিয়াটল। তবে নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি, লস অ্যাঞ্জেলেস ও ওয়াশিংটন ডুলস বিমানবন্দরে এখনো চালু আছে এমিরেটসের ফ্লাইট। এক বিবৃতিতে এমিরেটস জানায়, উড়োজাহাজ প্রস্তুতকারী ও কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ বিষয়ে বৈঠক চলছে। শিগগিরই আবারো যুক্তরাষ্ট্র পর্যন্ত ফ্লাইট পরিষেবা আবার চালু করার আশ্বাস দিয়েছে সংস্থাটি।

এদিকে এয়ার ইন্ডিয়া বলছে দিল্লি বিমানবন্দর থেকে সানফ্রান্সিসকো, শিকাগো ও জেএফকেগামী ফ্লাইট বন্ধ করা হবে। পাশাপাশি মুম্বাই থেকে নিউয়ার্কগামী ফ্লাইটও বাতিল করবে বলে জানায় সংস্থাটি। তবে ওয়াশিংটন ডিসির ডুলস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফ্লাইট পরিষেবা চালু থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এয়ার ইন্ডিয়া।

এএনএ ও জাপান এয়ারলাইনস যুক্তরাষ্ট্রে বোয়িং-৭৭৭-এর পরিবর্তে বোয়িং-৭৮৭ উড়োজাহাজ ব্যবহারের তথ্য দিয়েছে।

ফাইভজি ও উড়োজাহাজের মধ্যকার প্রযুক্তিগত জটিলতা এড়াতে এ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে এয়ারলাইনসগুলো। এক বিবৃতিতে ডেল্টা এয়ারলাইনস জানায়, যান্ত্রিক বিভ্রাটের আশঙ্কায় টেলিকম প্রতিষ্ঠানগুলো গতকালের ফাইভজি সুবিধা সীমিত করার পরিকল্পনা করেছে। সংস্থাটি আরো বলেছে, প্রতিবন্ধকতা এড়াতে এটি একটি ইতিবাচক পদক্ষেপ হলেও ফ্লাইট ব্যবস্থায় কিছু বিধিনিষেধ থাকছে।

চলতি বছর জানুয়ারিতে চালু করা ফাইভজি সংস্করণের সঙ্গে উড়োজাহাজের মধ্যে যান্ত্রিক গোলযোগ দেখা দেয়ার বিষয়ে আগেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছে পরিবহন নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ। বেশকিছু উড়োজাহাজ শিল্প সংস্থাও এ বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করে। মার্কিন সরকারি পরিবহন সংস্থা ফেডারেল উড়োজাহাজ প্রশাসন এ বিষয়ে বলেছে, ভ্রমণকারীদের ডিভাইস ছাড়াও বিমানবন্দরের কাছে ফাইভজি সেলুলার অ্যান্টেনা উড়োজাহাজের র্যাডারে ত্রুটি সৃষ্টি করতে পারে। ফলে পাইলট ভুল রিডিং পাবেন বলে আশঙ্কা করেছে সংস্থাটি।

এদিকে নেটওয়ার্ক অপারেটর প্রতিষ্ঠান এটিঅ্যান্ডটি ও ভেরিজোন বলেছে, প্রযুক্তিগত জটিলতা এড়াতে নির্দিষ্ট কিছু বিমানবন্দরের কাছাকাছি অবস্থিত টাওয়ারে ফাইভজি পরিষেবা চালু বিলম্বিত করবে। ফাইভজি পরিষেবা বিলম্বিত করার সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে বাইডেন প্রশাসন।

এক বিবৃতিতে বাইডেন প্রশাসন জানায়, এর ফলে যাত্রী পরিবাহী পরিষেবা, কার্গো কার্যক্রম ও অর্থনীতি পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়ায় প্রতিবন্ধকতা এড়ানো সম্ভব হবে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.