Main Menu

সার্বিয়া প্রবাসী বাদল খন্দকারের লাশ দেশে এসেছে

বিদেশবার্তা২৪ ডেস্ক:
সার্বিয়ায় গিয়ে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যাওয়া প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মী বাদল খন্দকারের মরদেহ দেশে আনা হয়েছে। শনিবার রাতে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে তার মরদেহ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়।

বিমানবন্দরে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের কর্মকর্তারা তার পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করেন। এসময় বাদল খন্দকারের স্ত্রী শাহনাজ আক্তার সাথী মরদেহটি গ্রহণ করেন এবং কান্নায় ভেঙে পড়েন।

বাদল খন্দকারের ভাই সাদ্দাম জানান, মরদেহ তার নিজ বাড়ি মানিকগঞ্জ দাফন করা হবে।

গত ৮ মার্চ বাদল খন্দকার মারা যান। পরে বাদল খন্দকারের মরদেহ দেশে আনতে উদ্যোগ নেন ইতালির রোমে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

সার্বিয়ায় নিযুক্ত অনারারি কনসাল জেনারেল ডেভর ব্রেসিককে স্থানীয়ভাবে যোগাযোগ করে তার মৃতদেহের অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হন এবং দেশে পাঠানোর বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ ও ফিউনারেল এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

এরপর লাশ দেশে পাঠানোর খরচ বহনের জন্য ঢাকায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডে চিঠি দেয় দূতাবাস। এর প্রেক্ষিতে অর্থ বরাদ্দের অনুমোদন দেয় বোর্ড।

প্রসঙ্গত, চার মাস আগে মেসার্স নূরজাহান রিক্রুটিং এজেন্সি নামে একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) ছাড়পত্র নিয়ে কাজের উদ্দেশ্যে সার্বিয়ায় যান ১৪ বাংলাদেশি কর্মী। কিন্তু গিয়ে দেখেন সার্বিয়ান কোম্পানি ‘ভেকা প্লেনা’ বন্ধ হয়ে গেছে। কাজ না পেয়ে হতাশায় ভেঙে পড়েন তারা। তাদের মধ্যে একজন মানিকগঞ্জের বাদল খন্দকার। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে পথেই মারা যান।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.