Main Menu

প্রবাসী বাংলাদেশীদের স্বার্থে রোম পৌরসভায় বৈঠক

বিদেশবার্তা২৪ ডেস্ক:
ইতালির রাজধানী ঐতিহাসিক রোমে প্রায় অর্ধলক্ষাধিক বাংলাদেশি অধিবাসীদের নিয়ে গঠিত বাংলাদেশ কমিউনিটির বয়স প্রায় ৪০ বছর। তবে দেরিতে হলেও বাংলাদেশ কমিউনিটির সাথে নতুন করে, নতুন আঙ্গিকে সম্পর্কিত হতে যাচ্ছে এদেশের স্থানীয় প্রশাসন এবং মূল ধারার রাজনৈতিক মঞ্চ গুলো।

বাংলাদেশ ইমিগ্র্যান্টস এসোসিয়েশন (বিমাস) এর প্রেসিডেন্ট এবং চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ল-সিসিএল এর চেয়ারম্যান ডঃ মোঃ মুক্তার হোসেন এরই পথ পরিক্রমায় বাংলাদেশ কমিউনিটির উপস্থাপনাকে আরো সাবলীল করা এবং ইদানীংকালে উত্থিত কিছু সমস্যার সমাধানের পথ খোঁজার লক্ষ্যে রোম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র রর্বেতো গুয়ালতিয়েরি সাথে সাক্ষাৎকার এর একটি উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

রোমের মেয়র সোমবার (২১ মার্চ) তার সাথে সাক্ষাৎকারের সময় দেন তবে, দুর্ভাগ্যবশত তিনি অসুস্থ থাকায় তার অনুরোধ ক্রমে তার পক্ষ থেকে পৌরসভার প্রেসিডেন্ট ও পৌর সংসদের স্পিকার স্ভেতলানা চেল্লি সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং উভয় পক্ষের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এসময় রোম লাজিও বিভাগের প্রেসিডেন্ট নিকোলা জিঙ্গারেত্তি‘র রাজনৈতিক উপদেষ্টা এডভোকেট পাবনে গুস্তাভো ও অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাংবাদিক মনিরুজ্জামান মনির উপস্থিত ছিলেন।

আলোচ্য বিষয়:
বাংলাদেশী কমিউনিটির উন্নয়নে বিভিন্ন ধরনের আলোচনার মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পায় পৌরসভায় বিদেশিদের নির্বাচনের প্রক্রিয়া এবং এর বিভিন্ন দিক বিভাগসমূহ। এ ছাড়াও ইদানিংকালের একটি অধ্যাদেশের কারণে সপ্তাহের শুক্র, শনি ও রোববার রাত দশটার মধ্যে বিভিন্ন মনোহারী দোকান গুলো বন্ধ করার ফলে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার বিষয়টি এবং সেইসাথে কিছু স্থানীয় প্রচারমাধ্যমে মাননীয় মেয়র এর একটি মন্তব্যকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করায় কমিউনিটির ভেতরে যে মিত্র এবং নেতিবাচক প্রক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছিল সেই বিষয়ের একটি নিদর্শন খুঁজে বের করা মাননীয় প্রেসিডেন্ট নিশ্চিত করেন।

ফলপ্রসূ আলোচনার বিশেষ দিক:
যে অধ্যাদেশের ফলে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বা হচ্ছেন তাদের এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য আশু পদক্ষেপ অত্যন্ত জরুরী ভিত্তিতে গ্রহণ করা হবে এবং রোম পৌরসভার প্রেসিডেন্ট স্ভেতলানা চেল্লি আশ্বস্ত করেন যে আগামী এপ্রিলের পর এই অধ্যাদেশ বর্ধিত করা হবে না অর্থাৎ সপ্তাহের শুক্র শনি রবিবার রাত দশটার মধ্যে বিভিন্ন মনোহারী দোকান গুলো বন্ধ করার নিষেধাজ্ঞার সময় বাড়ানো হবে না।

বর্তমানে বামপন্থী রাজনৈতিক দলের বিজয়ের ফলে পৌরসভার প্রায় সর্বত্রই বিদেশি বান্ধব স্থানীয় সরকার কাজ করছে, সেহেতু স্থানীয় প্রশাসন বিদেশিদের এবং বিশেষ করে শান্তিপ্রিয় বাংলাদেশীদের ব্যাপারে আলোচনার দুয়ার সব সময় খোলা এবং যেকোন সমস্যার সমাধানে আলোচনার টেবিলে বসার আহ্বান করেন রোম পৌরসভার প্রেসিডেন্ট । পাশাপাশি তিনি মনে করেন, কমিউনিটির উচিত হবে বিভ্রান্তিকর তথ্য বা কথায় কর্ণপাত না করে, প্রতিনিধিদের মাধ্যমে উপযুক্তভাবে সমস্ত তথ্য যাচাই-বাছাই করে প্রতিক্রিয়া দেখানো।

সর্বশেষে পৌর সংসদের স্পিকার স্ভেতলানা চেল্লি, বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কমিউনিটির উদ্দেশ্যে একটি শুভেচ্ছা বাণী প্রেরণ করেন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.