Main Menu

স্পেনের সংশোধিত অভিবাসন আইনে রয়েছে যেসব সুবিধা

ডেস্ক রিপোর্ট:
শ্রম বাজারে অভিবাসীদের অন্তর্ভুক্ত করতে সম্প্রতি আইন সংস্কার করেছে স্পেন৷ এর ফলে একদিকে দেশটিতে থাকা অনিয়মিত অভিবাসীদের বৈধভাবে থাকা এবং কাজে যোগ দেয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে৷ অন্যদিকে বিদেশ থেকে মৌসুমি কাজের ভিসা নিয়ে আসাও আগের চেয়ে সহজ করেছে সরকার৷

গত ২৬ জুলাই সংশোধিত অভিবাসন আইনের অনুমোদন দিয়েছে স্পেনের মন্ত্রিসভা৷ দেশটির সামাজিক নিরাপত্তা ও অভিবাসন মন্ত্রণালয় এই পরিবর্তনের প্রস্তাব দিয়েছিল৷ স্পেনের অভিবাসন ব্যবস্থা ও প্রক্রিয়াকে আরো উন্নত করা এর মূল উদ্দেশ্য ছিল বলে মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে৷ আরো বলা হয়েছে, বর্তমান মডেলটি ’ধীর ও অপর্যাপ্ত’, যার কারণে অনিয়মিত অভিবাসীদের নিয়মের আওতায় আনতে দীর্ঘ সময় লেগে যাচ্ছে৷ এর ফলে স্পেনের সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষতি হচ্ছে৷ অন্যদিকে আইন সংশোধনের ফলে স্পেনের শ্রম বাজার উপকৃত হবে এবং বৈধ অভিবাসন চ্যানেল পুনরায় চালু করা যাবে বলে আশা করছে মন্ত্রণালয়৷ সামাজিক নিরাপত্তা ও অভিবাসনমন্ত্রী হোসে লুইস এসক্রিভা সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘এই উদ্যোগের ফলে অভিবাসনের কারণে সৃষ্ট চ্যালেঞ্জগুলো আমরা ভালোভাবে মোকাবিলা করতে পারবো৷’’

বিদেশি শিক্ষার্থীদের কাজের সুযোগ
মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি অনুযায়ী স্পেনে বর্তমানে বসবাসরতদের শ্রম বাজারে অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে আইনের তিনটি গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আনা হয়েছে৷ শিক্ষার্থীদের স্থায়ীকরণ ও কাজের সুযোগ বৃদ্ধির মাধ্যমে বিদেশি মেধাবিদের স্পেনের প্রতি আকৃষ্ট করতে চায় দেশটির সরকার৷

এই ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা একইসঙ্গে কাজ ও প্রশিক্ষণ গ্রহণের অনুমতি পাবেন৷ সপ্তাহে ৩০ ঘণ্টা পর্যন্ত কাজ করার সুযোগ পাবেন তারা৷ সেই সঙ্গে পড়াশোনার পর দেশটির শ্রম বাজারে ঢুকার ক্ষেত্রেও কোনো ধরনের বাধা থাকবে না তাদের জন্য৷ বর্তমান বিধি অনুযায়ী, কাজের অনুমতি পেতে তাদের তিন বছর পর্যন্ত স্পেনে থাকতে হয়৷

সেই সঙ্গে পারিবারিক পুনর্মিলন ভিসার নিয়মকানুন আগের চেয়ে সহজ করা হয়েছে৷

অনিয়মিতদের বৈধকরণ
শ্রমবাজারের জন্য দক্ষ কর্মী তৈরি করতে জার্মানির উদাহরণকে কাজে লাগাতে চায় স্পেন৷ আর তাই আইনে বিদেশিদের দেশটির বিভিন্ন খাতের উপযোগী করে তুলতে প্রশিক্ষণের উপর জোর দেয়া হয়েছে৷ যেসব বিদেশি স্পেনে দুই বছর ধরে অনিয়মিতভাবে বসবাস করছেন তারা প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশ নেয়ার মাধ্যমে ১২ মাসের বসবাসের অনুমতি পাবেন৷

এছাড়া যারা ছয়মাস ধরে কাগজবিহীনভাবে কাজ করেছেন, তারা প্রমাণ সাপেক্ষে বৈধভাবে কাজের অনুমতির জন্য আবেদন করতে পারবেন৷

বৈধ অভিবাসনকে উৎসাহ
মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি অনুযায়ী, সংশোধিত আইনে উদ্যোক্তা বা স্বনিযুক্ত কর্মে থাকাদের স্পেনে অভিবাসনের নিয়ম আরো যুক্তিযুক্ত ও সহজ হয়েছে৷ সেই সঙ্গে চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য বিদেশি কর্মী নিয়োগে প্রক্রিয়াও আগের চেয়ে সরল করা হয়েছে৷

শিল্প, কৃষিসহ যেসব খাতে কর্মী সংকট আছে তারা বিদেশ থেকে কর্মী আনার অনুমতি পাবে৷ এক্ষেত্রে চার বছরের ভিসায় বছরে নয়মাস পর্যন্ত কাজের অনুমতি পাবেন বিদেশিরা৷

প্রশাসনিক প্রক্রিয়া সহজীকরণ
আইনে অভিবাসন সংক্রান্ত ফাইল প্রক্রিয়াকরণ ইউনিট নামে একটি আলাদা বিভাগ স্থাপনের কথা বলা হয়েছে৷ এর ফলে অভিবাসন সংক্রান্ত সমস্ত প্রক্রিয়া একটি বিভাগের মাধ্যমেই সমাধান করা যাবে৷ স্পেনের সব অঞ্চলকে অভিবাসন বিষয়ক আবেদনের ব্যবস্থাকে একটি মানদণ্ডে নিয়ে আসা হবে৷ আইনের ফলে কনস্যুলার অফিসগুলোর প্রক্রিয়াও উন্নত হবে বলে মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে৷

এসক্রিভা জানিয়েছেন, যেসব খাতে কর্মী চাহিদা রয়েছে তার একটি হালনাগাদ তালিকা প্রকাশ করবে তার মন্ত্রণালয়৷ এতে শ্রমবাজার সম্পর্কে পরিস্কার চিত্র পাওয়া যাবে৷

সরকারের হিসাবে স্পেনে পাঁচ লাখ মানুষ আছেন, যারা এখন অনানুষ্ঠানিকভাবে কাজে নিযুক্ত আছেন৷ চাকরিদাতাদের তথ্য অনুযায়ী, পর্যটন, কৃষি, নির্মাণ ও পণ্য পরিবহণ খাতে কর্মী সংকটে ভুগছেন তারা৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর নাগরিকদের কাজের অনুমতি সত্ত্বেও এইসব খাতের চাহিদা মেটানো সম্ভব হচ্ছে না৷ কিছু নির্দিষ্ট খাতে কর্মী চাহিদা পূরণে মরক্কো, ইকুয়েডর ও কলম্বিয়ার সঙ্গে চুক্তি রয়েছে দেশটির৷ সূত্র: ইনফোমাইগ্রেন্টস






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.