Main Menu

কানাডায় বাড়ির মূল্য আকাশ ছুঁয়েছে, বিপাকে একক আয়নির্ভর পরিবার

বিদেশবার্তা২৪ ডেস্ক:
কানাডায় বাড়ির মূল্য আকাশ ছুঁয়েছে। এতে মহাবিপাকে পড়েছে একক আয়নির্ভর পরিবারগুলো। প্রথমবারের মতো বাড়ির ক্রেতা ডমিনিক। ভালো একটি চাকরি থাকা সত্ত্বেও তিনি বলেন, তার মতো একক আয়নির্ভর পরিবারের যে সক্ষমতা তাতে বাড়ি খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। বেতন নিয়ে আমার কোনো অভিযোগ নেই। কিন্তু দুইয়ের কম শয়নকক্ষের বাড়ি কেনাাটা আমার কাছে ভালো মনে হয় না।

ডমিনিক একজন প্রকৌশলী এবং সাডবারির আয়োনিক মেকাট্রনিকসে প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত। তিনি বলেন, অন্টারিওর লাইভলি অথবা কেমসফোর্ডের মতো শহর থেকে দূরবর্তী এলাকায় ছোট একটি বাড়ির কথা ভাবছিলাম। উঠানে তার পোষ্যের দৌড়ানোর মতো যথেষ্ট জায়গাও রয়েছে বাড়িটিতে।

অন্টারিওর লাইভলিতে কেনা তার ৬০০ বর্গফুটের প্রথম বাড়িটির দাম পড়ে ২ লাখ ৫০ হাজার ডলার। বাড়িটির তালিকাবদ্ধ দাম ছিল ১ লাখ ৯৯ হাজার ডলার এবং বিক্রি হয় ২ লাখ ৭১ হাজার ডলারে।

২৯ বছর বয়সী ডমিনিক বলছিলেন, বাড়ির মালিক আমার বয়সী মানুষদের কথা ভাবছি। আমার মনে হয় তাদের অর্ধেকেরই বাড়িটি উত্তরাধীকারসূত্রে পাওয়া। একে সমালোচনার চোখে দেখার কিছু নেই। এটা অবশ্যই আদর্শ দৃশ্যপট। কিন্তু বিষয়টি হলো যারা প্রথাগত পদ্ধতিতে বাড়ি কেনেন তাদের ক্ষেত্রে। আমার ক্ষেত্রে দুটি, বড় জোর তিনটির কথা আন্দাজ করে বলতে পারি। প্রথমবারের মতো বাড়ির ক্রেতা হওয়া অসুবিধায় ফেলে দিয়েছে তাকে। কারণ, তাকে এ খাতের বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে হচ্ছে।

প্রথমবারের মতো বাড়ি কিনতে দুই বছর ধরে সক্রিয়ভাবে খোঁজাখুঁজির মধ্যে গ্রেটার সাডবারির বাসিন্দা আমান্দা প্রাইড। তিনি বলছিলেন, আমি সবচেয়ে খারাপ সময়ে বাজারে এসেছি। একই কোম্পানিতে আমি ১৫ বছর ধরে চাকরি করছি। কিন্তু তিনি পরিবারের একমাত্র উপাজয়নকারী ব্যক্তি হওয়ায় যতবারই বাড়ি কেনার চেষ্টা করেছেন ততবারই ব্যর্থ হয়েছেন।

ডমিনিকের মতো প্রাইডও বলছিলেন, তার ও পোষ্যের স্থান সংকুলান হয় এমন একটি ছোট একটি বাড়ির খোঁজে আছেন তিনি। ১ লাখ ৮০ হাজার থেকে ২ লাখ ৫০ হাজার ডলার দাম উল্লেখ করা বাড়ি খুঁজছেন তিনি। কিন্তু এই মূল্যের একটি বাড়ি মেরামতে ঈস্খয়োজন হবে ৩০ হাজার ডলার।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.