Main Menu

হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন হবে ঢাকায়, সৌদিতে নেমে সরাসরি গন্তব্যে

নিউজ ডেস্ক:
বাংলাদেশ থেকে হজযাত্রীরা সৌদি আরবের বিমানবন্দরে নামার পর ইমিগ্রেশনের কোনো ধরনের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই তাদের গন্তব্যে যেতে পারবেন। এ বছর যারা হজে যাবেন তাদের সবার ইমিগ্রশন প্রক্রিয়া হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সম্পন্ন হবে।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক বৈঠকের পর এ তথ্য জানানো হয়।

চলতি বছরের হজের প্রস্তুতির বিষয়ে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকের সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী এনামুল হাসান। এর আগে ২০১৯ সালে সীমিত সংখ্যক হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন আনুষ্ঠানিকতা শাহজালালে সম্পন্ন হয়েছিল।

তার আগে সৌদি আরবে অবতরণের পর ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হজযাত্রীদের বিমানবন্দরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হতো।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এখন পর্যন্ত শুধু মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়া তাদের নিজ দেশের বিমানবন্দরে হজ যাত্রীদের ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারে।

এখন থেকে বাংলাদেশের হজযাত্রীরাও ফ্লাইটের আগে ঢাকায় তাদের ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া কয়েক মিনিটের মধ্যে সম্পন্ন করতে পারবেন। আগে সৌদি আরবে নামার পর তা করতে কয়েক ঘণ্টা সময় লেগে যেত।

এ বছর বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৫৭ হাজার ৫৮৫ জনের হজে যাওয়ার কথা আছে। জুলাইয়ের শুরুতে হজের ফ্লাইট শুরু হতে পারে বলে জানা গেছে। এ বছর বিশ্বের প্রায় ১০ লাখ মানুষ হজ করার অনুমতি পাবেন।

আজকের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ হজ যাত্রীদের জন্য ফ্লাইটের টিকেটের দাম যৌক্তিকভাবে নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে।

বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে হজ যাত্রীদের জন্য ফ্লাইটের টিকেটের মূল্য চূড়ান্ত করা হয়নি।

বৈঠকে হজ প্যাকেজ ঘোষণা, হজ ফ্লাইট শিডিউল তৈরি, ইমিগ্রেশন বাস্তবায়নের জন্য শাহজালালে সৌদি কর্তৃপক্ষের জন্য জায়গা বরাদ্দ, ডেডিকেটেড হজ ফ্লাইট, হজ এজেন্সির মাধ্যমে ফ্লাইটের টিকিট দেওয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান বলেন, ‘সময় কম, তাই আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করে উন্নত হজ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে হবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে বাকি সময়ে দিনরাত কাজ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘করোনা মহামারির পর পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আমাদের খুব অল্প সময়ে হজের প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে হবে।’

ফরিদুল হক খান সোমবার আরেক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘৬৫ বছরের বেশি বয়সীরা ইতোমধ্যে হজের জন্য নিবন্ধন করলেও, সৌদি সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারা এ বছর হজে যেতে পারবেন না।’

বৈঠকে বেসামরিক বিমান পরিবহন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.