Main Menu

ডিএসিএ অভিবাসীদের নাগরিকত্ব নবায়ন এখন থেকে অনলাইনে

বিদেশবার্তা২৪ ডেস্ক:
ডিফার্ড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভাল অথবা ডিএসিএ প্রোগ্রামের আওতাধীন নাগরিকত্ব এবং অভিবাসন নবায়নের আবেদনগুলি এখন থেকে অনলাইনে গ্রহন করা হবে।

এটি প্রেসিডেন্ট ওবামা-যুগের নীতি। প্রায় ৮ লাখ নথিপত্রবিহীন অভিবাসীকে শিশু হিসাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একটি ওয়ার্ক পারমিট এবং নির্বাসন থেকে অস্থায়ী সুরক্ষা দেয়।

ডিএসিএ গ্রহীতাদের দুই বছর পরপর স্টাটাস নবায়নের জন্য আবেদন করতে হয়। এতে প্রায় ৫০০ ডলার খরচ লাগে।

এর আগে কাগজপত্র এজেন্সিতে ইমেইল করতে হত। যা প্রক্রিয়াকরন হতে কয়েক মাসের মত সময় লেগে যেত। ফোনিক্সের বাসিন্দা জোস প্যাটিনো কয়েক বছর আগে ডিএসিএ নবায়ন করতে দেরি হওয়ায় তাকে এ সুরক্ষা থেকে বাদ দেয়া হয়েছিল।

তিনি বলেন, ‘তখনকার স্নায়ুবিক চাপের কথা আমি এখনও স্মরণ করি। আমি প্রতিদিন ড্রাইভিং করতাম উদ্বিগ্নতার সাথে এবং কাজ শেষে আমার এইচআর পারসনের কাছে চেক করতাম। আমি সে অবস্থায় আর কখনও ফিরে যেতে চাই না।’

কোন অভিবাসী যার কাছে নবায়ন করা বৈধ ডিএসিএ অনুমোদন থাকবে না তিনি কাজ করতে এবং এ্যারিজোনাতে ড্রাইভিং করতেও পারবেন না এবং তাকে বহিষ্কার করা হতে পারে।

প্যাটিনো বলেন, ‘এ কারনেই আমি লোকদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নবায়ন করার পরামর্শ দেই।’

তিনি মনে করেন নতুন এই পদ্ধতি সময় বাঁচাবে, নিরাপদ এবং গতিশীল হবে। এরই সাথে আগের ভুলগুলো শোধরানো হবে।

কিন্তু ডিএসিএ একটি অস্থায়ী স্টাটাস। এর মাধ্যমে নাগরিকত্ব পাওয়ার কোন পদ্ধতি নেই। প্যাটিনো বলেন, তিনি কংগ্রেস থেকে এ ব্যাপারে একটি স্থায়ী সমাধান আশা করেন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.