Main Menu

মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে শিমুল বাগান

নিউজ ডেস্ক:
ফাগুনের আগুন লেগেছে দেশের সর্ববৃহৎ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার জয়নাল আবেদীনের শিমুলবাগানে। প্রকৃতি, কল্পনার রং আর বাস্তব যেন মিলেমিশে একাকার অপরূপ এ শিমুলবাগানে। সৌন্দর্য উপভোগ করতে দেশের নানা প্রান্ত থেকে পর্যটকেরা আসছেন এখানে।

বিশাল শিমুলবাগানের একপ্রান্তে দাঁড়ালে অন্যপ্রান্ত দেখা যায় না। বাগানের ভেতরে যেদিকেই চোখ যায়, শুধুই শিমুলগাছের সারি। নৈসর্গিক সৌন্দর্যের এত বিশাল শিমুলবাগান দেশের আর কোথাও নেই। গাছের নিচে মাটিতেও ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে লাল ফুল। গাছ থেকে ফুল মাটিতে পড়ছে, ধপ করে শব্দ হচ্ছে। ধুলোমাখা মাটি যেন ফুলে ফুলে সাজানো লাল গালিচা; রূপকথার কোনো রাজ্য মনে হতে পারে একে। অজস্র ফুটন্ত শিমুল ফুল বলে দিচ্ছে বসন্ত এসে গেছে!

শত বিঘার বেশি জায়গাজুড়ে সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে জাদুকাটা নদীর তীরে এই শিমুলবাগান। পাশাপাশি আছে লেবুগাছ। বসন্তের দুপুরে পাপড়ি মেলে থাকা শিমুলের রক্তিম আভা মন রাঙায় তো বটেই, ঘুম ভাঙায় শৌখিন হৃদয়ের। এ যেন কল্পনার রঙে সাজানো এক শিমুলের প্রান্তর। ওপারে ভারতের মেঘালয় পাহাড়। মাঝে জাদুকাটা নদী আর এপারে শিমুল বন। সব মিলেমিশে গড়ে উঠেছে প্রকৃতির এক অনবদ্য কাব্য।

১৫ বছর আগে ২ হাজার ৪০০ জমিতে শুধুই শৌখিনতার বসে এই শিমুলবাগান গড়ে তোলেন জয়নাল আবেদীন নামের স্থানীয় এক ব্যবসায়ী। বসন্ত এলে যখন একসঙ্গে দুই হাজার গাছে ফুলে ভরে ওঠে, তখন পর্যটকদের নজর না কেড়ে উপায় কি!

শিমুলবাগানের মালিক প্রয়াত জয়নাল আবেদীনের ছেলে বাদাঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন বলেন, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অসংখ্য পর্যটক বাগানের সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসেছেন। পর্যটকদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থাও আছে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.