Main Menu

পরকীয়ায় জেরে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন

নিউজ ডেস্ক:
সুনামগঞ্জ শহরের পশ্চিম তেঘরিয়া এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর হাতে খুন হয়েছেন রিপা বেগম (৩০) নামের এক নারী। এ ঘটনায় স্বামী আব্দুল হামিদ মিল্টনকে (৪২) আটক করেছে র‌্যাব। তিনি সুনামগঞ্জ সুরমা ইউনিয়নের মঈনপুর গ্রামের লেম্বু মিয়ার ছেলে।

রোববার দুপুরে পৌর শহরের পশ্চিম তেঘরিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১৫ দিন আগে স্বামী আব্দুল হামিদের সঙ্গে রিপা বেগমের ঝগড়া হয়। পরে মঈনপুর গ্রাম থেকে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের পশ্চিম তেঘরিয়া এলাকায় ভাড়া বাসা নিয়ে মঙ্গলকাটা গ্রামের গুলজার আহমদ নামের এক যুবককে স্বামী পরিচয় দিয়ে বসবাস করতে থাকেন। খবর পেয়ে রিপার বাসায় যান মিল্টন। সেখানে গিয়ে তিনি ঘরের দরজা লাগিয়ে দেন।

প্রথমে তাদের কথা-কাটাকাটি হয়। পরে ঘরে থাকা দা দিয়ে রিপার মাথায় আঘাত করেন মিল্টন। রিপার চিৎকার শুনে স্থানীয়রা দরজা খুলতে বললে তিনি দরজা খুলে দৌড়ে পালিয়ে যান। পরে বাসার মালিক ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে ঘটনাটি বললে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে যান। পুলিশ আহত রিপা বেগমকে উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত রিপা বেগমের বড় মেয়ে ফাহমিদা জাহান বলে, ‘আমি পাশের ঘরে এসে টিভি দেখছিলাম। হঠাৎ আমার বাবা এসে ঘরের দরজা লাগিয়ে মায়ের সঙ্গে কথা বলতে থাকেন। পরে মায়ের চিৎকার শুনে পাশের ঘরের খালাসহ আমরা সবাই দৌড়ে যাই। বাবাকে দরজা খোলার জন্য অনুরোধ করলে বাবা দরজা খুলে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এসময় মা মাটিতে পড়েছিলেন।’

বাসার মালিক আরিফুর রহমান বলেন, ‘১৫ দিন আগে রিপা বেগম আমার বাসা ভাড়া নেন। তিনি জানান, উনার স্বামী গুলজার আহমদ ও এক মেয়েকে নিয়ে থাকবেন। সেই অনুযায়ী আমরা তাদের বাসা ভাড়া দেই। কিন্তু আজ হঠাৎ তার প্রথম স্বামী এসে তাকে দা দিয়ে আঘাত করে চলে যান। পরে আমি ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে পুলিশকে বিষয়টি জানাই।’

সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) জয়নাল আবেদীন বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর হাতে ওই নারী খুন হয়েছেন। অভিযুক্তকে আটক করেছে র‌্যাব। হত্যার শিকার নারীর পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে জানা গেছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.