Main Menu

বম্বোজেনেসিসের মুখোমুখি যুক্তরাষ্ট্র, ৬ হাজার ফ্লাইট বাতিল

নিউজ ডেস্ক:

ভয়াবহ তুষারপাত ও ঝড়ো বাতাসের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূলীয় অঞ্চলে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। গত চার বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর এই তুষারঝড়ের কারণে ইতোমধ্যেই পাঁচটি মার্কিন অঙ্গরাজ্যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। এসব এলাকায় শক্তিশালী ঠান্ডা বাতাস বয়ে যাওয়ার কারণে তুষারঝড় কবলিত এলাকাগুলোতে হাজারও ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

আশঙ্কা করা হচ্ছে, তুষারঝড়ের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূলের কিছু কিছু এলাকা যে পরিমাণ বরফে ঢেকে যেতে পারে সেটি হবে ‘ঐতিহাসিক’। এছাড়া উপকূলবর্তী ও এর আশপাশের এলাকায় বন্যা হতে পারে। এমন ভয়াবহ প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে প্রায় ৬ হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

প্রতিকূল আবহাওয়া ও তুষারঝড়ের কারণে ঝড়কবলিত মার্কিন অঙ্গরাজ্যগুলোতে প্রায় ৬ হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। গত শুক্রবার থেকে রবিবারের মধ্যে এসব ফ্লাইট বাতিল করা হয়।

ফ্লাইট সম্পর্কিত তথ্য প্রদানকারী সংস্থা ফ্লাইটঅ্যাওয়্যার এর তথ্য অনুযায়ী, গত শুক্রবার থেকে রবিবার পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে নির্ধারিত ৫ হাজারেরও বেশি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। তবে বিবিসি বলছে, বাতিল হওয়া ফ্লাইটের সংখ্যা প্রায় ৬ হাজার। এছাড়া সব মিলিয়ে মোট সাড়ে ৮ হাজারেরও বেশি ফ্লাইট নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বিলম্বে যাত্রা করেছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের পুরো উত্তর-পূর্বাঞ্চলে রবিাবারজুড়ে খুব ঠান্ডা তাপমাত্রা বজায় থাকতে পারে। নরইস্টার নামে পরিচিত এই তুষারঝড়ের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টন এলাকা ২ ফুট (৬১ সেন্টিমিটার) বরফে ঢেকে যেতে পারে।

এদিকে নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের অনেক এলাকা ইতোমধ্যেই প্রায় ২ ফুট (৬০ সেন্টিমিটার) বরফে ঢেকে গেছে। এর পাশাপাশি শনিবার রাতে মেইন অঙ্গরাজ্য ১২ ইঞ্চি (৩০ সেন্টিমিটার) পর্যন্ত বরফে ঢাকা পড়তে পারে। নিউ ইংল্যান্ড অঙ্গরাজ্য দুই ফুটেরও বেশি গভীর বরফের নিচে ঢাকা পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ক্যারোলিনা অঙ্গরাজ্যে নিরাপত্তার জন্য বাসিন্দাদের রাস্তায় বের না হতেও সতর্ক করা হয়েছে। বোস্টন শহরের মেয়র শনিবার জানান, এ শহর প্রায়ই তুষারঝড়ের কবলে পড়ে। তবে এ ঝড়টি ‘ঐতিহাসিক’ হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের আবহওয়া দফতর ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস (এনডব্লিউএস) জানায়, এই তুষারঝড়ের তীব্রতা এতো দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পাবে যে পূর্ব উপকূলজুড়ে বম্বোজেনেসিস পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে। ঝড়ের ঠাণ্ডা বাতাস যখন সমুদ্রের উষ্ণ বাতাসের সঙ্গে মিশে বায়ুমণ্ডলের চাপ দ্রুতগতিতে হ্রাস করে তখন সেই পরিস্থিতিকে বলা হয় বম্বোজেনেসিস। বলা হচ্ছে- এর ফলে ভয়ঙ্কর ধরনের সাইক্লোনের সৃষ্টি হতে পারে যা ‘বোম্ব সাইক্লোন’ হিসেবে পরিচিত।

বোস্টনের ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস শুধুমাত্র জরুরি পরিস্থিতিতেই মানুষকে ঘর থেকে বের হওয়া বা এক স্থান থেকে অন্য স্থানে ভ্রমণ করার পরামর্শ দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০০৩ সালে এরকম এক ঝড়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই সেখানে ৭০ সেন্টিমিটার পুরু রেকর্ড পরিমাণ বরফ পড়েছিল। আগের তুলনায় বাতাসের গতি আরও তীব্র হবে এবং সেটি ঘূর্ণিঝড়ের মাত্রায় পৌঁছানোরও সম্ভাবনা রয়েছে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

 






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.