Main Menu

নিজ এলাকায় ছাত্রলীগ নেতা গোলাম রাব্বানীকে ছুরিকাঘাত

নিউজ ডেস্ক:
চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজৈর উপজেলার ইশিবপুর ইউনিয়নে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে জখম হয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তিনি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তার নিজ এলাকার পাশ্বর্বতী ইশিবপুরে ভোট দেখতে এসেছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুপুরে রাজৈর উপজেলার ইশিবপুর ইউনিয়নের গাংকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আসেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। এসময় কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ার বিষয়ে প্রতিবাদ করেন তিনি। তখন প্রতিপক্ষের লোকজন তার ওপর হামলা চালায়। ঠেকাতে গিয়ে তার ডান হাতের তিনটি আঙুল কেটে যায়।

স্থানীয়রা জানান, ইউপি নির্বাচনে ইশিবপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম রব্বানীর মামা সালাহ উদ্দিন আহমেদ চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন। মামার পক্ষে বেশকিছু দিন তিনি প্রচার চালিয়েছেন। ৭ নম্বর ওয়ার্ডের গাংকান্দি সরকারি বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রতিপক্ষ মোশারফ মোল্লার লোকজনের ভোট কারচুপি অভিযোগ শুনে রাব্বানী সেখানে যান। এ সময় ওই প্রার্থীর ছেলে সোহেল মোল্লা তার ওপর চড়াও হন। এক পর্যায়ে তাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। হামলা ঠেকাতে গিয়ে তার ডান হাতের তিনটি আঙুল কেটে যায়। পরে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এতে উভয় পক্ষের আরও পাঁচজন আহত হন। পরে স্থানীয়রা রাব্বানীসহ অন্যদের রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। রাব্বানীর হাতে সেলাই দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গোলাম রাব্বানী সাংবাদিকদের বলেন, ‘নির্বাচনে মোশারফ মোল্লার লোকজন প্রকাশ্যে ভোট কেটে নেয়ার চেষ্টা করছিল। পরে আমিসহ কিছু লোক গিয়ে বিষয়টি জানার চেষ্টা করলে, আমাকে অস্ত্র দিয়ে কোপ দেয়া হয়। আমি থানায় অভিযোগ করবো। ’

প্রিজাইডিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক বলেন, ‘কেন্দ্রের ভেতর তেমন কোনো কিছু হয়নি। কেন্দ্রের বাইরে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ভোট সুষ্ঠু ও সুন্দর হয়েছে। কোনো জাল ভোট বা ভোট কারচুপির ঘটনা ঘটেনি। বাইরে কিছু হলে সেটা তো আমার দেখার বিষয় নয়। ’

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. সাদিক বলেন, ‘নির্বাচনে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটতে পারে। আমি এখনও রাব্বানীর ওপর হামলার কথা শুনেনি। থানায় অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’ সূত্র: বাংলানিউজ






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.